1. [email protected] : abdullah ashik : abdullah ashik
  2. [email protected] : admin :
ছেলে শিখবে লেখাপড়া, মা সেলাই
January 25, 2022, 10:35 am

ছেলে শিখবে লেখাপড়া, মা সেলাই

Reporter Name
  • Update Time : Tuesday, June 5, 2018
  • 75 Time View

কিশোর অটোভ্যানচালক আশিকের বাড়িতে ইউএনও। ছবি: যুগান্তর
যুগান্তরে সংবাদ প্রকাশের পর পাবনার চাটমোহরে মূলগ্রাম ইউনিয়নের জগতলা গ্রামের কিশোর অটোভ্যানচালক আশিক শিখবে লেখাপড়া, তার মা শিখবে সেলাই।
উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে দেয়া হবে সেলাই মেশিন। তার বাবাকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে তোলা হবে। বাড়ির সামনে করে দেয়া হবে দোকান।
সোমবার সকালে ঠিকানা খুঁজে বের করে আশিকের বাড়িতে যান ইউএনও সরকার অসীম কুমার। পরে তিনি আশিকের পরিবারের করুণ অবস্থার কথা শুনে তাদের পরিবারের দায়িত্ব নেন।

অপরদিকে বেজপাড়া গ্রামের শেকলবন্দি বাবুলের বাড়িতে গিয়ে তাকে শেকলমুক্ত করা এবং চিকিৎসার দায়িত্ব নেন ইউএনও।
‘না খায়া থাকলি আপনি কি আমাক দেখপেননি’, এবং ‘২০ বছর ধরে শেকলবন্দি বাবুল’-এমন ভিন্ন দুটি শিরোনামে গত শনিবার দৈনিক যুগান্তরে সচিত্র সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর দৃষ্টিগোচর হয় ইউএনওর।
এ সময় উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার মো. আবু রাহাত সোহেল, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারী মো. খলিলুর রহমান, ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন, শ্রমিক লীগ নেতা আব্দুল জলিলসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

আশিকের বাড়িতে গিয়ে জানা গেল, তিন ভাইবোনের মধ্যে আশিক মেজ। দ্বিতীয় শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় বাবা রহমত আলী অসুস্থ হলে উপায়ান্তর না পেয়ে পরিবারের সবার মুখে অন্ন তুলে দিতে পড়াশোনা বাদ দিয়ে বাবার অটোভ্যান নিয়ে অর্থ উপার্জনে রাস্তায় নামে আশিক।
এদিকে মুরগির খামারের পাশে শেকলবন্দি করে রাখা হয় মানসিক প্রতিবন্ধী বাবুল হোসেনকে। বিষয়টি অমানবিক হওয়ায় বাবুলের দুই ভাইকে ভর্ৎসনা করেন ইউএনও সরকার অসীম কুমার।

পরপর কয়েকটি মানবিক ঘটনা নিয়ে দৈনিক যুগান্তরে সচিত্র সংবাদ প্রকাশের পর তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ নেয়ায় ইউএনও সরকার অসীম কুমারকে সাধুবাদ জানিয়েছেন চাটমোহরের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা।
সরকার অসীম কুমার যুগান্তরকে বলেন, আশিকদের মতো ঝরে পড়া শিশু-কিশোর শ্রমিকদের সমাজের মূল স্রোতে ফেরাতে হবে। আশিক এখন থেকে আর ভ্যান চালাবে না। তাকে স্কুলে ভর্তি করে দেয়া হবে। শেকলবন্দি বাবুলকেও মুক্ত করা হলো।
তিনি বলেন, এর আগে পাবনা জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন স্যারের সহযোগিতায় মানসিক প্রতিবন্ধী শুকজান নেছা বৃষ্টিকে পুনর্বাসিত করা হয়েছে। সুখীসমৃদ্ধ উন্নত বাংলাদেশ গড়ায় আমরা সর্বদা সচেষ্ট ও অঙ্গীকারবদ্ধ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 TV Site
Develper By ITSadik.Xyz